বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে স্বাগতম

সিলেটের এই প্রশাসনিক ঐতিহাসিক, প্রাকৃতিক ও ভৌগলিক স্বাতন্ত্র্য বিবেচনায় বেতার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠাকল্পে ১৯৫৮ সালে টিলাগড়ে দু’টি ষ্টুডিও সম্পন্ন ট্রান্সমিটার ভবনের নির্মাণ কাজ শুর হয়। দুই কিলোওয়াট শক্তির ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে ১৯৬১ এর ১লা সেপ্টেম্বর প্রচার হয় প্রথম অনুষ্ঠান। তখন ছিল শুধু রিলে স্টেশন। ১৯৬৭ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে নিজস্ব অনুষ্ঠান প্রচার শুরু হয়। কয়েক মাস শুধু সঙ্গীত প্রচারিত হতো। ১৯৬৮ এর জুলাই থেকে কথিকা ও নাটক যুক্ত হয়। পূর্ণাঙ্গ আঞ্চলিক কেন্দ্র হিসেবে সিলেট বেতার ১৯৭০ খৃষ্টাব্দে যাত্রা শুরু করে। বেতারের কার্যক্রম ও চাহিদা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সিলেট বেতারে কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। তাই ১৯৭১ এর ২০ জানুয়ারি টিলাগড় থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার পশ্চিম-দক্ষিণ দিকে মিরের ময়দানে ১৫ কক্ষ বিশিষ্ট একটি বাড়িতে দাপ্তরিক কাজ শুরু হয়। ১৯৭২ সালে এখানে অস্থায়ী একটি রেকর্ডিং ষ্টুডিও নির্মাণ করা হয়। ১৯৭৮-৭৯ অর্থ বছরে সিলেট কেন্দ্রের পুর্ণাঙ্গ স্টুডিও নির্মাণে উল্লেখযোগ্য প্রকল্প গৃহীত হয়। স্টুডিওর সাজ-সরঞ্জামের অধিকাংশ অস্ট্রেলিয়া সরকারের অনুদানে পাওয়া যায়। এ প্রকল্পের অধীনে নির্মিত হয় চারটি স্টুডিও, নিয়ন্ত্রন কক্ষ এবং ঘোষণা প্রচারের জন্য বুথ ও রেকর্ডিং এডিটিং কক্ষ। স্থাপন করা হয় ২৫ কিলোওয়াট শক্তি জেনারেটর। পুরনো ভবনের পাশেই ২.৬৭ একর জমির উপর ৪৫ কক্ষ বিশিষ্ট তিন তলা ভবনও নির্মিত হয়। এ ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় ০৮ মার্চ ১৯৮০(২৪ ফাল্গুন, ১৩৮৬ বঙ্গাব্দ)। সিলেট কেন্দ্রের প্রক্ষেপন যন্ত্রের ক্ষমতা দুই কিলোওয়াট থেকে বাড়িয়ে ১৯৭৮ সালে ২২ নভেম্বর বিশ কিলোওয়াটে উন্নীত করা হয়। অনুষ্ঠান প্রচারের ক্ষেত্রে সিলেট বেতারের যথেষ্ট অগ্রগতি রয়েছে। দুটি অধিবেশনে এখন মধ্যম তরঙ্গ ও এফ এম. তরঙ্গে সর্বমোট দৈনিক ২৩ ঘন্টা অনুষ্ঠান প্রচারিত হচ্ছে।২০০৭ সাল থেকে ০১(এক) কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ১০৫.০ মেগাহার্টস তরঙ্গের এফ এম ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে অত্র কেন্দ্রের এফ এম সম্প্রচার শুরু হয়। ২০১২ সালের এপ্রিল মাসে আরেকটি ১০(দশ) কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৮৮.৮ মেগাহার্টস তরঙ্গের এফ এম ট্রান্সমিটার স্থাপন করা হয় এবং এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান সম্প্রচার শুরু হয়। ২০১৩ সালের জুন মাসে ০৫(পাঁচ) কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৯০.০ মেগাহার্টস তরঙ্গের এফ এম ট্রান্সমিটার স্থাপন করা হয় এবং এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান সম্প্রচার শুরু হয়। বর্তমানে মধ্যম তরঙ্গের পাশাপাশি তিনটি এফ এম তরঙ্গে বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রচারিত হচ্ছে । অনুষ্ঠান প্রচারকালীন শ্রোতারা মোবাইল ফোনে এসএমএস এবং ফোন-ইন অনুষ্ঠানে ফোনের মাধ্যমে এর মাধ্যমে অংশ নেন। সংবাদ বুলেটিন ও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি নারী ও শিশু উন্নয়ন, কৃষি, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকলপনা, শিক্ষা ও তথ্য প্রযুক্তি, উন্নয়নমূলক এবং জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে প্রচারিত এসব অনুষ্ঠানমালা সিলেটে অঞ্চলে অত্যন্ত জনপ্রিয়। এভাবে সিলেট বেতার অনুষ্ঠান সম্প্রচারে রাখছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান।

আঞ্চলিক পরিচালক

আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তারিক
আঞ্চলিক পরিচালক
বাংলাদেশ বেতার সিলেট। ...বিস্তারিত

ফটোগ্যালারী
ভিডিও
নোটিশ
  • করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মাত্রা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রে আগত সকল শিল্পী,কলাকুশলী এবং সেবাগ্রহিতাসহ সর্বস্তরের জনগণকে মাস্ক পরিধান সহ সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হল।
  • বাংলাদেশ বেতার, সিলেট কেন্দ্রে সঙ্গীত শিল্পীদের কণ্ঠস্বর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের পূর্নাঙ্গ তারিখ দেখতে অডিশন / গ্রেডেশন ফলাফলে ক্লিক করুন।
  • বাংলাদেশ বেতার, সিলেট কেন্দ্রে তালিকাভুক্ত সঙ্গীত শিল্পীদের শ্রেণি নির্ধারণের জন্য অনুমোদিত বোর্ড গত ০৯,১০,১১,১২,১৩/১২/২০১৮খ্রি. তারিখে শ্রেণী উন্নয়ন পরীক্ষা গ্রহন করে। বোর্ডের সম্মানিত সদস্যবৃন্দ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের মধ্য থেকে ৩২৪ জন শিল্পীকে বিষয় ভিত্তিক তাদের বিদ্যমান শ্রেণী থেকে উচ্চতর শ্রেণীতে উন্নয়নের সুপারিশ প্রদান করেন। বাংলাদেশ বেতার, সদর দপ্তরের ২৮-০৩-২০১৯খ্রিঃ তারিখে স্মরক নং- ১৫.৫৩.০০০০.০০৯.৩৮.০০৮.১৭-২২৬ জারিকৃত পত্রের মাধ্যমে উপরোক্ত সঙ্গীত শিল্পীদের শ্রেণী নির্ধারণ অনুমোদন করা হয়েছে। পূর্নাঙ্গ ফলাফল দেখতে অডিশন / গ্রেডেশন ফলাফলে ক্লিক করুন।
  • গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সকল শ্রোতা, শিল্পী ও কলাকুশলীদের সাথে বাংলাদেশ বেতার সিলেটের সহজ ও দ্রুততর পদ্ধতিতে যোগাযোগ সাধনের লক্ষ্য নিয়ে বাংলাদেশ বেতার, সিলেট কেন্দ্রের নিজস্ব ওয়েবসাইট যাত্রা শুরু করেছে।
  • লাইভ সম্প্রচার
    মানচিত্রে অবস্থান
    ক্যালেন্ডার

    প্রয়োজনীয় লিংকস